গোপালগঞ্জের ভিসি সাড়ে ৪ বছরে ২৭জন আপনজনসহ চাকুরী দিয়েছে দুই শতাধিক

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পদত্যাগকারী উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিন তার আপন ভাতিজা/ভাগ্নে/চাচাতো ভাই/বোনের মেয়ে/ভাগ্নি জামাই/বন্ধুর ননদের মেয়ে/বেয়াই/মামাতো বোনের ছেলে/বন্ধুর ভাগ্নে ও ভাগ্নে বউসহ ২৭ জন মানুষকে কর্মকর্তা/ পিয়ন/ মালিসহ নানান পদে চাকুরী দিয়ে ছিলেন।
আর এছাড়াও তিনি মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তা পদে চাকুরী দিয়ে ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির ভাতিজাসহ কমপক্ষে আরো ৫০ জনকে। এ ছাড়াও তিনি প্রায় ৩০ থেকে ৪০জন জামাত-বিএনপি পহ্নী শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে। তার নিয়োগ দেয়া শিক্ষকরাও পরবর্তীতে ভিসি নাসিরউদ্দীনের পদত্যাগের দাবীর আন্দোলনে শরীক হয়ে ছিলেন। সরকারী চাকুরীর বয়স নাই এমন ব্যাক্তিকেও চাকুরী দিয়েছেন মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে। নাম পরিবর্তন করে ভাইয়ের নামে চাকুরী করছেন বছরের পর বছর এমন রেকর্ডও পাওয়া গেছে তথ্য সংগ্রহকালে। এর সাথে জড়িত আছেন আরো কয়েকজন তাদের নামের তালিকাও উঠে আসছে তথ্য সংগ্রহকালে।
গত সাড়ে ৪ বছরে তিনি এ সব মানুষদের চাকুরী দিয়েছেন বলে জানা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেকর্ড অনুযায়ী দেখা যায় গত সাড়ে ৪ বছরে সাবেক ভিসির একান্ত আপনজন ২৭ জন ছাড়াও আরো ৮ জনকে চাকুরী দিয়েছেন। আপনজন যারা চাকুরী পেয়েছেন তারা হলেন, সহকারী অধ্যাপক শরাফত আলী (আপন ভাগ্নি জামাই) সেকশন অফিসার হামীম খোন্দকার (আপন ভাতিজা) সহকারী অধ্যাপক মাহামুদ পারভেজ (আপন ভাতিজা) সেকশন অফিসার কানিজ ফাতেমা (বোনের ননদের মেয়ে) হিসাব কর্মকর্তা চৌধুরী মনিরুল হাসান (ভাগ্নে) অডিট অফিসার ফয়সাল আহম্মেদ (বন্ধুর ভাগ্নে) সহকারী অডিট অফিসার (বন্ধুর ভাগ্নের স্ত্রী) সহকারী প্রোগ্রামার আবীর আহসান মনির (ভাগ্নে) প্রশাসনিক কর্মকর্তা আতাউর হোসেন (মামাতো বোনের ছেলে) প্রশাসনিক কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম (ভায়রার ছেলে) প্রশাসনিক কর্মকর্তা রাকিবুল ইসলাম (ভাতিজা) ডেপুটি রেজিষ্টার, খান মোহাম্মাদ আলী (নিকট আতœীয়), মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল ইসলাম (খানঁ মোহাম্মাদ আলীর শ্যালক), অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর বাহারুল ইসলাম (খালাতো বোনের ছেলে), অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর (পারভেজের আপন বোন, এইচএসসি), অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর ভিসির বড় বোনের মেয়ে এইচএসসি) অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর মুশফিকুর রহমান (ময়মনসিংহের উপাচার্য এর বাসায় থাকতেন), নিরাপত্তা সহকারী (মোশারেফের চাচাতো ভাই) এমএলএসএস আজিজ খোন্দকার (চাচাতো ভাইয়ের ছেলে) মালি শাহআলম তালুকদার (চাচাতো ভাগ্নে), মালি রেজাউল খোন্দকার (চাচাতো ভাই), মালি এয়াহিয়া সিকদার সোনাকুড় (বেয়াই), মালি ওছিকার সোনাকুড় (বেয়াই) সরকারী চাকুরী বয়স নাই) সব শেষ মেয়াদ বাড়ার আগে আপন ভাগ্নেসহ ৮জনকে।
এ ছাড়াও সাবেক ভিসির বাসায় থেকে অসহায় দরিদ্র নারীদের চাকুরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শারিরীক ভাবে মেলামেশা করেছেন। কিন্তু পরে চাকুরী না পেয়ে চলে গেছেন। কেউ-ই সাহস করে মুখ খুলে কথা বলতে পারেননি।
নাসির মোল্লা নামে একজন (গার্ড) কাশিয়ানীর দু’জন হিন্দু লোককে চাকুরী দেয়ার কথা বলে একজন আইনজীবির মাধ্যমে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা নিয়েছেন কিন্তু চাকুর দেননি এবং আজ পর্যন্ত তাদের টাকাও ফেরত দেননি। এমএলএসএস (চাচাতো ভাইয়ের ছেলে) আজিজ খোন্দকারের বিরুদ্ধে রয়েছে নারী কেলেংকারী ও লক্ষ লক্ষ টাকার অভিযোগ।
এ ব্যাপারে ঘটনার সত্যত্যা জানতে চেয়ে সাবেক ভিসি খোন্দকার নাসির উদ্দিনের ব্যবহৃত মোবাইল ০১৭১১-১৩০২৫৬, ০১৭১২-৮২৪৮০০ ও ০১৫১৫-২৭৫০৪৬ নম্বরে বার বার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Leave a Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

ওয়েবসাইট নির্মানে: আইটি হাউজ বাংলাদেশ