ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রলারডুবির ঘটনায় মামলা, চালকসহ গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত: ২৮-০৮-২০২১, সময়: ০৭:৪০ |
Share This

মোঃ মনিরুল হক : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনায় একটি দুর্ঘটনাজতিন হত্যা মামলা করা হয়েছে।শনিবার দুপুরে বিজয়নগর থানায় ট্রলারচালক ও তার সহকারীসহ সাতজনকে আসামি করে একটি দুর্ঘটনাজতিন হত্যা মামলা দায়ের করেন নামাগেরাগাঁও গ্রামের বাসিন্দা সেলিম মিয়া। এ ঘটনায় সেলিম মিয়ার পরিবারের চার সদস্য নিহত হয়েছেন।এদিকে এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ঘটনায় ট্রলারচালকসহ পাঁচজনকে বিজয়নগর উপজেলার চরইসলামপুর থেকে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন স্থানীয় জনতা। অন্য দুজনকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।আটকরা হলো- সরাইল উপজেলার পানিশ্বর ইউনিয়নের ষোলাবাড়ি এলাকার আবজল মিয়ার ছেলে বালুবোঝাই ট্রলারচালক জামির মিয়া (৩৫), তার সহকারী কাশেম মিয়ার ছেলে মো. খোকন (২২) ও মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মো. রাসেল (১৮), মো. সোলায়মান মিয়া (৬০) ও মিষ্টু মিয়া (৬৭) পত্তন ইউনিয়নের বাসিন্দা।বিজয়নগর থানার ওসি মির্জা মোহাম্মদ হাসান জানান, ট্রলারডুবির ঘটনায় শনিবার দুপুর একটি বিজয়নগর থানায় ট্রলারচালকসহ সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দয়ের করা হয়েছে। মামলাটি দায়ের করেন উপজেলার নামাগেরাগাঁও গ্রামের বাসিন্দা সেলিম মিয়া।এর আগে পৌনে ১০টায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা উপজেলার লইসকা বিল থেকে ওই শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করেন।নিখোঁজ নাশরা নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরও অর্ধশতাধিক।শনিবার সকাল পৌনে ১০টায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা উপজেলার লইসকা বিল থেকে ওই শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করেন।নিহত শিশু নাশরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পৈরতলা এলাকার হারিছ মিয়ার মেয়ে। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি। এদিকে লাশ উদ্ধারের পর তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।এর আগে শুক্রবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে লইসকা বিলে একটি যাত্রীবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি বালুবোঝাই ট্রলারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে শতাধিক যাত্রীবোঝাই ট্রলারটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় শনিবার সকাল পর্যন্ত ২২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাদের মধ্যে ১৬ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন রেজা বলেন, দুর্ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে বালুবোঝাই ট্রলারের চালকসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। আটকরা পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। উদ্ধারকাজ এখনও চলছে।এ ঘটনায় যাদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে তারা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের পৈরতলা এলাকার আবু সাঈদের স্ত্রী মোমেনা বেগম (৫৫) ও ফারুক মিয়ার স্ত্রী কাজল বেগম (৪০), দাতিয়ারা এলাকার মোবারক মিয়ার মেয়ে তাসফিয়া মিম (১২), সদর উপজেলার সাদেরকপুর গ্রামের মুরাদ হোসেনের ছেলে তানভীর (৮), চিলোকুট গ্রামের আব্দুল্লাহ মিয়ার শিশু কন্যা তাকুয়া (৮), নরসিংসার গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে সাজিম (৭), ভাটপাড়া গ্রামের ঝারু মিয়ার মেয়ে শারমিন (১৮), বিজয়নগর উপজেলার চম্পকনগর ইউনিয়নের ফতেহপুর গ্রামের জহিরুল হকের ছেলে আরিফ বিল্লাহ (২০), বেড়াগাঁও গ্রামের মৃত মালু মিয়ার স্ত্রী মঞ্জু বেগম (৬০), জজ মিয়ার স্ত্রী ফরিদা বেগম (৪৭) ও তার মেয়ে মুন্নি (১০), আব্দুল হাসিমের স্ত্রী কমলা বেগম (৫২), নূরপুর গ্রামের মৃত রাজ্জাক মিয়ার স্ত্রী মিনারা বেগম (৫০), আদমপুর গ্রামের অখিল বিশ্বাসের স্ত্রী অঞ্জনী বিশ্বাস (৩০), পরিমল বিশ্বাসের মেয়ে তিথিবা বিশ্বাস (২) এবং ময়মনসিংহের খোকন মিয়ার স্ত্রী ঝর্ণা বেগম (৪৫)।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে