আটককৃত জেএমবি সদস্য মামুন ছিলেন একজন মুয়াজ্জিন

প্রকাশিত: ১২-০৭-২০২১, সময়: ১৮:০৬ |
Share This

ডেস্ক  রিপোর্ট : নব্য জেএমবির সদস্য গ্রেফতারকৃত আব্দুল্লাহ আল মামুন ছিলেন মূলত আড়াইহাজারের সাতগ্রাম ইউনিয়নের নোয়াগাঁও কেন্দ্রীয় জামে  মসজিদের মুয়াজ্জিন।সোমবার সরেজমিনে এলাকায় গেলে স্থানীয়রা জানান, দেড় বছর আগে এই মসজিদে নিয়োগ পান মামুন। এলাকায় সবার সঙ্গেই সুসম্পর্ক গড়ে তোলেন তিনি। অনেকের বাড়িতে গিয়ে ছাত্র পড়াতেন এই মামুন। তার পিতার নাম হান্নান এবং মাতার নাম শিউলি। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের কাজীপুরের চালিতাডাঙ্গায়। পাশের সমাজকল্যাণ বাজার মসজিদের ইমাম এরশাদ উল্লাহ তাকে এনে নোয়াগাঁও মসজিদে চাকরি দেন। তিনি সম্পর্কে মামুনের ভগিনীপতি।এদিকে অভিযানের পর বাড়িটিতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে একটি কক্ষে যেখানে মামুন থাকতেন সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে নানা বই। জিহাদী বইও আছে এর মধ্যে। বিছানা তছনছ করে রাখা। এই কক্ষে বসেই বোমা তৈরির কাজ করতেন এই মামুন। শক্তিশালী আইইডি বোমা তৈরিতে মামুন ছিলেন পারদর্শী।এলাকাবাসী জানান, মামুন অনেকদিন ধরেই মসজিদে মুয়াজ্জিনের দায়িত্ব পালন করছেন। তাকে নিয়ে এলাকাবাসীর কখনো কোনো সন্দেহ হয়নি। তিনি এলাকায়ই থাকতেন।সিটিটিসির কর্মকর্তারা জানান, মামুন নোয়াগাঁও এলাকার একটি মসজিদের ইমাম হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। ইমামতির আড়ালে তিনি বোমা তৈরির একটি কারখানা গড়ে তুলেছেন। সিটিটিসির এক কর্মকর্তা জানান, জঙ্গি আস্তানাটি নব্য জেএমবির। গ্রেফতার হওয়া মামুন নব্য জেএমবির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। জিজ্ঞাসাবাদ করে তার সহযোগীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। একই সঙ্গে জঙ্গি আস্তানায় কী পরিমাণ এক্সপ্লোসিভ আছে, তা জেনে অভিযানের প্রস্তুতি চলছে।এর আগে গত ১৭ মে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে প্লাস্টিকের ব্যাগের ভেতর থেকে একটি শক্তিশালী বোমা উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে রোববার বিকেলে আড়াইহাজারের মিয়াবাড়ি জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন আবদুল্লাহ আল মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে বোমাটি আড়াইহাজারের বাড়িতে তৈরি ছিল।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে