মঠবাড়িয়ায় সমতা ও ক্ষমতায়নে নারীর অবস্থান শীর্ষক আলোচনা

প্রকাশিত: ১০-০৬-২০২১, সময়: ১৪:৪৮ |
Share This

জুলফিকার আমীন সোহেল : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ‘সমতা ও ক্ষমতায়নে নারীর অবস্থান শীর্ষক’ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকেলে তুষখালী ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে অপরাজিতা নেটওয়ার্কের আয়োজিত এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, পিরোজপুর জেলা পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান জনাব মহিউদ্দিন মহারাজ।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান হাওলাদারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, মঠবাড়িয়া থানর ওসি মুহাঃ নূরুল ইসলাম বাদল, বিআরডিবি চেয়ারম্যান জনাব আরিফ উল হক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নজরু ইসলাম শরীফ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায় কর্মকর্তা মিলন তালুকদার, উপজেলা জাতীয় হিন্দু মহাজোট আহবায়ক শ্যামল মিত্র, হিন্দু মহিলা মহাজোট সভাপতি নমিতা বিশ্বাস, ইউনিয়ন জাতীয় হিন্দু মহাজোট সভাপতি সুমন বেপারী, স্টেপস কর্মকর্তা ইসরাত জাহান মামতাজ, রূপান্তর কর্মকর্তা কহিনুর বেগম প্রমূখ।

মঠবাড়িয়ায় কামিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেসা কামিল মাদ্রাসায় শূণ্যপদে অধ্যক্ষ নিয়োগে সীমাহীন দূর্ণীতির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসি ও অভিভাকদের পক্ষ থেকে আমিরুর ইসলাম সংশ্লিষ্ট দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ পদটি চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি শূণ্য হয়। নিয়ম অনুযায়ী ১৫ বছরের উপাধ্যক্ষ পদে চাকুরির অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তি অধ্যক্ষ পদে আবেদন করতে পারবেন। কিন্তু ওই মাদ্রাসায় সহকারি মৌলভী পদে নিয়োগপ্রাপ্ত সদ্য প্রভাষক সাবেক অধ্যক্ষের ছেলে নজরুল ইসলাম শরীফকে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগের পাঁয়তারা চলছে। নজরুল ইসলামকে ২০১৩ সালে বাঁকা পথে প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। বাঁছাই কমিটি দূর্ণীতির মাধ্যমে বর্তমানে সহকারি অধ্যাপক নজরুল ইসলামকে ১৬ বছর ৪ মাসের অভিজ্ঞতা সনদ প্রদান করেন। অথচ এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৪ জন সিনিয়র প্রভাষক থাকা সত্তেও জুনিয়র প্রভাষককে সহকারি অধ্যাপক দেয়া হয়েছে। বঙ্গমাতার নামে ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন সীমাহীন দূর্ণীতিতে শিক্ষক-কর্মচারী ও এলাকাবাসির মধ্যে চাঁপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এ ব্যপারে জানতে অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম বলেন, যথাযথ অভিজ্ঞতার আলোকে আমি প্রয়োজনীয় কগজপত্র সহ অধ্যক্ষ পদেও জন্য আবেদন করেছি।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসেন বলেন, পদ অনুযায়ী যথাযথ অভিজ্ঞতা ও প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র না থাকলে তাকে অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হবে না।
মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুর ইসলাম ভূঞা বলেন, আমিও লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মঠবাড়িয়ায় ষাটোর্ধ কৃষকের জমি দখলের চেষ্টা ॥ থানায় জিডি

বিশেষ প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ভূমিদস্যু গ্রুপ ইদ্রিস আলী হাওলাদার (৬২) নামে এক কৃষকের জমি দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার ইদ্রিস আলী বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার ৪ জনের বিরেুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় জিডি করেছেন। বিবাদীরা হলো- উপজেলার অহেদাবাদ গ্রামের মৃত. লাল মিয়ার ছেলে কামাল, সোবাহান, হানিফ ও মেয়ে কহিনুর বেগম। কৃষক ইদ্রিস আলী উপজেলার উত্তর মিরুখালী গ্রামের আঃ অহাব হাওলাদারের ছেলে।
ইদ্রিস আলী হাওলাদার জনান, তিনি মিরুখালী-ভগিরথপুর সড়কের পাশে সাড়ে ১৬ শতাংশ জমি সাব কবলা দলীল মূলে ক্রয় করে দীর্ঘ দিন ধরে ভোগ দখল করে আসছে। কিন্তু এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যুরা ওই জমি দখলের পায়তারা চালিয়ে আসছে। এঘটনায় একাধিক শালিশ বৈঠক দিলেও তারা অমান্য করে আসছে। গত ৩১ মে সকাল ৬ টার দিকে ওহেদাবাদ গ্রামের মৃত. লাল মিয়ার ছেলে ভূমিদস্যু কামাল, সোবাহান, হানিফ ও মেয়ে কহিনুর বেগম এবং তাদের সহযোগিরা দলবলসহ ইট,বালু দিয়ে পাঁকা স্থাপণা নির্মানের চেষ্টা চালায়। এসময় বাঁধা দিয়ে খুন-জখম ও মিথ্যা মামলায় জড়ানোর হুমকি দিয়ে চলে যায়।
মঠবাড়িয়া থানার ওসি মুহাঃ নূরুল ইসলাম বাদল জিডির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে