কুষ্টিয়ায় জিয়াউর রহমানের শাহাদতবার্ষিকীতে দোয়া মাহফিল ও বিভিন্ন কর্মসূচীতে বাধা প্রদানের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৩০-০৫-২০২১, সময়: ১৩:৩৭ |
Share This

মুকুল খসরু, কুষ্টিয়া : বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক, স্বাধীনতার ঘোষক, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪০ তম শাহাদতবার্ষিকীতে কুষ্টিয়ায় দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বাদ যোহর দলীয় কার্যালয় এবং জেলার কেন্দ্রীয় বড় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল করতে পুলিশি বাধা প্রদান করে। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির চেয়ারপর্সনের উপদেষ্টা কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মেহেদী আহমেদ রুমীর বাস ভবনে এ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া-মাহফিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় মেহেদী রুমীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক কুষ্টিয়া জেলা সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। সভাপতির বক্তব্যে মেহেদী রুমী বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান দেশ মাটি ও মানুষের কথা ভেবে আজীবন সংগ্রাম করেছেন। নতুন বাংলাদেশ গঠনে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তৃণমুল পর্যায়ে মানুষের মাঝে গেছেন তারই উত্তরসরি তারেক জিয়া দেশ মাতৃকার উন্নয়নে দেশের এ প্রান্ত অন্য প্রান্ত গেছেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় শহীদ জিয়ার আদর্শের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন বলেন, রাষ্টপতি হিসেবে দেশে এক ইতিহাস গড়েছিলেন শহীদ জিয়া, তার মৃত্যুতে সমস্ত দেশ হয়েছিলো শোকে কাতর, যার প্রমান তার নামাজে জানাযায় লক্ষ লক্ষ লোকের উপস্থিতি। দোয়া মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি বশিরুল আলম চাদ, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুঈদ বাবুল, যুব বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, ধর্মীয় সম্পাদক শফিউল আলম টিটু, সহ-দপ্তর সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান রাসেল প্রমুখ।
এর আগে পূর্ব নির্ধারিত দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচীতে পুলিশ বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি। কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি মেহেদী আহমেদ রুমী জানান, রবিবার সকাল থেকেই কয়েক ভ্যান পুলিশ মোতায়েন করে দলীয় কার্যালয়ের অনুষ্ঠান ভেন্যু অবরুদ্ধ করে রাখে পুলিশ। দিনের শুরুতে দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন করতেও বাধাপ্রদান করা হয় । সেই সাথে জেলা পুলিশ প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাসহ মডেল থানার ওসি আমাদের ছাপ জানিয়ে দেন কোন অনুষ্ঠান হবে না। আমরা সরকারের এ জাতীয় অগণতান্ত্রিক আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। তবে এবিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সাব্বিরুল ইসলাম অভিযোগ নাকচ করে জানান, সেখানে আইন-শৃংখলা বজায় রাখতেই পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। কারো দোয়া-মাহফিলে বাধা দিচ্ছে না পুলিশ।

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে