কসোভোকে স্বীকৃতি দিচ্ছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ২৮-০২-২০১৭, সময়: ০৪:৪২ |
Share This

ইউরোপের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ কসোভোকে স্বীকৃতি দেয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। সকালে সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়।

সাবেক যুগোস্লাভিয়ার এই দেশটি ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে স্বাধীনতা ঘোষনা করে। ১৯৯১ সালে যুগোস্লাভিয়া ভেঙ্গে গেলে এটি সার্বিয়ার অর্ন্তগত হয়। তবে জাতিগত বিরোধের কারণে কসোভোর জনসাধারণ স্বাধীনতার দাবি করতে থাকে। ২০০৬ সালে কসভোর ভাগ্য নির্ধারণের জন্য আন্তর্জাতিক আলোচনা শুরু হয়।

কসভোর সীমান্তে মন্টেনিগ্রো, আলবেনিয়া ও ম্যাসিডোনিয়া অবস্থিত। এর জনসংখ্যা ২০ লক্ষ। এদের বেশিরভাগই জাতিগতভাবে আলবেনীয়। তবে সার্বীয়, তুর্কি, বসনীয়, জিপসি এবং অন্যান্য জাতির লোকেদের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় রয়েছে। প্রদেশের সবচেয়ে বড় শহর ও রাজধানীর নাম প্রিস্তিনা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য সহ বেশ কিছু দেশ কসোভোকে রাষ্ট্র হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এবার বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলো।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সংবাদ সম্মেলনে জানান, এখন পর্যন্ত ১১৩টি দেশ কসোভেকে স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। ওআইসিভুক্ত (মুসলিম দেশ) ৫৭টি দেশের মধ্যে ৩৬টি দেশ এরই মধ্যে তাদের সমর্থন জানিয়েছে।

এছাড়া মন্ত্রিসািয় পাঁচটি আইনের খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়। এর মধ্যে আছে সামুদ্রিক মৎস্য আইন-২০১৭ শেখ হাসিনা জাতীয় যুব উন্নয়ন ইনস্টিটিউট আইন। অনুমোদন দেয়া হয়েছে জাতীয় যুবনীতির খসড়ায়। পাশাপাশি বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে স্বাক্ষরের জন্য দ্বৈত করারোপ পরিহার ও রাজস্ব ফাঁকি রোধসংক্রান্ত চুক্তির খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে