সিআইপি হলেন ১৬৪ জন

প্রকাশিত: ২৮-০২-২০১৭, সময়: ০৪:৩৭ |
Share This

দেশের রফতানি বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৩ সালের জন্য ১৬৪ জনকে সিআইপি হিসেবে নির্বাচন করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)। সিআইপি (রফতানি) নীতিমালা ২০১৩ অনুযায়ী তাদের নির্বাচন করা হয়।

গতকাল রাজধানীর হোটেল র্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে সিআইপি কার্ড বিতরণ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ নির্বাচিতদের হাতে রফতানি বাণিজ্যে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এ কার্ড তুলে দেন। এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আলম মামুন, ইপিবি ভাইস চেয়ারম্যান মাফরূহা সুলতানা ও এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদসহ আরো অনেকে।

২০১৩ সালের জন্য পণ্য রফতানি ক্যাটাগরিতে ১২৫ জন ও ট্রেড ক্যাটাগরিতে ৩৯ জনসহ মোট ১৬৪ জন সিআইপি (রফতানি) নির্বাচিত হয়েছেন। সিআইপি কার্ডধারীরা সরকারের পক্ষ থেকে যেসব সুযোগ-সুবিধা পাবেন, তার মধ্যে রয়েছে— সচিবালয়ে প্রবেশে বিশেষ পাস ও গাড়ির স্টিকার; ব্যবসা-সংক্রান্ত ভ্রমণে আকাশ, রেল, সড়ক ও জলপথে সরকারি যানবাহনে আসন সংরক্ষণে অগ্রাধিকার; বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান ও মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন কর্তৃক আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ; বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ-২ ব্যবহার; ব্যবসায়িক কাজে বিদেশ ভ্রমণের ভিসাপ্রাপ্তির জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে লেটার অব ইন্ট্রোডাকশন ইস্যু এবং স্ত্রী, পুত্র, কন্যা ও নিজের চিকিত্সার জন্য সরকারি হাসপাতালের কেবিনে সুবিধাপ্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার। সিআইপি (রফতানি) কার্ডের মেয়াদ এক বছর হলেও পরবর্তী সিআইপি ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত এ সুযোগ-সুবিধা পাবেন নির্বাচিত ব্যবসায়ীরা। তবে সিআইপিদের (বাণিজ্য) মেয়াদ তাদের সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য সংগঠনে পদে বহাল থাকা বা পরবর্তী সিআইপি ঘোষণার আগ পর্যন্ত (যেটি আগে হয়) কার্যকর থাকবে।

কাঁচা পাটপণ্য খাতে মোট ছয়জন সিআইপি (রফতানি) নির্বাচিত হয়েছেন। তারা হলেন— হাসান আহমেদ, সুজিত কুমার ভট্টাচার্য্য, মো. সেলিম রেজা, নাজমূল হক, মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির ও কাজী নাবিল আহমেদ। চামড়া (ক্রাস্ট ও ফিনিশড) খাতে নির্বাচিত চারজন সিআইপি (রফতানি) নির্বাচিত হয়েছেন আবদুল মাজেদ, শেখ মোমিন উদ্দিন, শামসুর রহমান ও রেজাউল করিম আনসারী। চামড়াজাত দ্রব্যে অনিরুদ্ধ কুমার রায়, মোহাম্মদ সায়ফুল ইসলাম, মহিউদ্দিন আহমেদ মাহিন, কাজী রাশেদ হাসান ফেরদৌস, জয়নাল আবেদীন মজুমদার, শেখ মোমিন উদ্দিন, ফিরোজা বেগম ও

মোহাম্মদ নাজমূল হাসান সিআইপি (রফতানি) কার্ড পেয়েছেন।

হিমায়িত খাদ্যে সিআইপি (রফতানি) হয়েছেন রেজাউল হক, মোহাম্মদ আমিন উল্যাহ্, কাজী আহমেদ, এসএম মিজানুর রহমান, আবদুল জব্বার মোল্লা, মিঞা মোহাম্মদ আবদুস সালাম, আব্দুর রউফ চৌধুরী ও আহমেদ কামরুল ইসলাম চৌধুরী। ওভেন পোশাকে আনিসুর রহমান সিনহা, শরীফ জহীর, আরশাদ জামাল, আলী আজিম খান, ইদ্রিস সাকুর, মুজিবুর রহমান,  মো. ইসমাইল হোসেন, মো. আজিজুল ইসলাম, ইতেমাদ উদ দৌলাহ, খান আবু মাসুদ মো. আসাদুজ্জামান, মোতালেব হোসেন, নাসির উদ্দিন, সাজ্জাদুর রহমান মৃধা, মো. সিদ্দিকুর রহমান, ইনামূল হক খান, আতিকুল ইসলাম, কাজী এএফএম জয়নুল আবেদিন ও রতন কুমার দত্ত সিআইপি কার্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

নিট পোশাকে মো. গোলাম মুস্তফা, গাওহার সিরাজ জামিল, মো. আসাদুল ইসলাম, অমল পোদ্দার, সালাউদ্দিন আলমগীর, নাজিম উদ্দিন আহমেদ, মাসুদুজ্জামান, নাবিল উদ দৌলাহ, সৈয়দ এ. কে. আনোয়ারুজ্জামান, আসলাম সানি, আঞ্জুমান-আরা-খানম, মো. কামাল উদ্দিন, মহিউদ্দিন ফারুকী, আবদুল কাদির মোল্লা, লুত্ফুর রহমান, সেলিম ওসমান, মোখলেছুর রহমান, রফিকুল ইসলাম, সুলতানা জাহান, মশিউর রহমান, বোরহান উদ্দীন, আবদুল হাই সরকার, প্রীতি পোদ্দার, রানা শফিউল্লাহ, নুরুল আলম চৌধুরী, অঞ্জন শেখর দাশ, ফাতেমা জামান, সৈয়দ মো. আবদুল হাই, নাফিস সিকদার, আবদুল ওয়াহেদ, এম জালাল উদ্দিন চৌধুরী, সাকের আহম্মেদ, খলিলুর রহমান, মো. শামসুজ্জামান ও জাহাঙ্গীর আলম খান সিআইপি (রফতানি) নির্বাচিত হয়েছেন।

কৃষিজাত পণ্যে গোবিন্দ চন্দ্র সাহা, মোহাম্মদ মনসুর, গকুল চন্দ্র সাহা, ওমর ফারুক, রফিকুল ইসলাম, শেখ আবদুল কাদের, সেলিনা কাদের ও জহিরুল ইসলাম এবং কৃষি প্রক্রিয়াকরণ পণ্যে জহিরুল ইসলাম, ইলিয়াস মৃধা, ওমর ফারুক, অঞ্জন চৌধুরী, মোহাম্মদ আবু শাহরিয়ার ও আবদুল মোতালেব সিআইপি (রফতানি) নির্বাচিত হয়েছেন। প্লাস্টিক পণ্যে নির্বাচিত সিআইপিরা হলেন— জসিম উদ্দীন, শেখ মোহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ, বিশ্বজিত সাহা ও গোলাম রহমান এবং বস্ত্র খাতে মোহাম্মাদ নুরুল ইসলাম, সাখাওয়াত হোসেন, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ জাবের, আবদুল হাই সরকার ও আবদুল্লাহ আল মাহমুদ।

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে