জঙ্গীবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে কক্সবাজার পুলিশ সুপারের জিরো টলারেন্স

প্রকাশিত: ০৫-০৩-২০১৭, সময়: ১৬:৩৯ |
Share This

 

জঙ্গীবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন কক্সবাজার পুলিশ সুপার ড. এ কে.এম ইকবাল হোসেন।  কক্সবাজারের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ উখিয়া কলেজ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মাদক বিরোধী সমাবেশ প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ ঘোষণা দেন।

৫ মার্চ রবিবার দুপুরে কলেজ অধ্যক্ষ ফজলুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে মাদক ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে ড. এ কে.এম ইকবাল হোসেন বলেন, যতদিন পুরো কক্সবাজার মাদকমুক্ত হবে না ততদিন পযর্ন্ত চলবে এ যুদ্ধ।

তিনি আরো বলেন মাদকের ব্যাপারে কোন আপোষ নেই। আর এ যুদ্ধে সফলকাম হতে পুলিশের পাশাপাশি সমাজকর্মি ও শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা প্রয়োজন। সবার সহযোগিতা পেলেই দেশের সব অপরাধ নির্মুল করা সম্ভব হবে।

সভাপতি কলেজ অধ্যক্ষ ফজলুল করিম বলেন, মাদক হচ্ছে সমস্ত কিছু নষ্টের মুল। এ মাদকের কারণে যুব সমাজ আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। মাদক বিরোধী অভিযানে পুলিশের সাথে উখিয়া কলেজ কর্তৃপক্ষের সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপাধ্যক্ষ আবদুল হক বলেন, সর্বাঙ্গে ব্যাথা, ঔষধ দিবো কোথায় ? পুরো উখিয়াবাসী মাদকের করাল গ্রাসে। তাই এ থেকে উত্তোরণের জন্য শিক্ষকদের পাশাপাশি সকল অভিভাবক সহ শিক্ষার্থীদেরও নিজ নিজ অবস্থান থেকে মাদক নিয়ন্ত্রণে সচেতন হতে হবে।

স্বাগত বক্তব্যে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আবুল খায়ের বলেন, মাদকের ভয়াবহতায় সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। তাই মাদক নিয়ন্ত্রণে সকল শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিত্ব করার আহবান জানাই। কেননা, অনেক সময় কোমলমতি শিক্ষার্থীরাও মাদক বহনে ব্যবহার হচ্ছে। কোন শিক্ষার্থী মাদক বহন কালে আটক হয়ে জেলে যাক এটা আমাদের কাম্য নয়।

সমাজ বিজ্ঞানের শিক্ষক আলমগীর মাহমুদ ভূপেন হাজারিকার গানের সুরে তিনি বলেন, বর্গিরা এখন দেয় না হানা, নেয় কো জমিদার, তবু কেন এদেশ জুড়ে নিত্য হাঁহাকার। মাদক আমাদের সমাজকে বিষিয়ে তুলেছে। সবার সচেতনতায় একমাত্র এর থেকে উত্তরণ ঘটাতে পারে।

শিক্ষাথী আবু বক্কর বলেন, পর্যটন নগরী হিসেবে কক্সবাজারের পরিচিতি বিশ্বব্যাপী হলেও মাদকের ঘাটি হিসেবেও এর প্রসারতা ব্যাপক আকারে ধারণ করেছে। মাদকের করালগ্রাসের কারণে উখিয়ার পরিচিতি তুলে ধরতেও অনেক সময় লজ্জাবোধ হয়। সমাবেশে মাদক বিরোধী অভিযানে উখিয়া কলেজ শিক্ষার্থীদের সার্বিক সহযোগিতা আশ্বাস দেন তিনি। শিক্ষার্থী শারমিন আকতার একই ধরণের অভিমত ব্যক্ত করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উখিয়া থানা ওসি (তদন্ত) কায় কিস্লু, কলেজ শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারী অধ্যাপক অজিত কুমার দাশ, সহকারী অধ্যাপক ফরিদুল আলম চৌধুরী, সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, প্রভাষকদের মধ্যে নবী হোসাইন, নুরূল হক, শিল্পী পাল, কামরুন নাহার, খুরশেদ আলম, মো: জালাল উদ্দিন, মো: আমানত উল্লাহ, প্রদর্শক প্লাবন বড়–য়া, লাইব্রেরীয়ান সাহাব উদ্দিন, প্রধান সহকারী আবদুর রহিম, হিসাবরক্ষক জিয়াউল হক, আইটি কর্মকর্তা পলাশ বড়ুয়া, সাধন বড়ুয়া, শামশুল আলম, মনিন্দ্র বড়ুয়া, হাফেজ আলী আহমদ, নিলু বড়ুয়া, ছৈয়দ হামজা, নুরুল ইসলাম সহ পাচঁ শতাধিক শিক্ষার্থী।

প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে কলেজ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে জঙ্গীবাদ ও মাদকের কুফল সম্পর্কে প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন ও র‌্যালী হয়। পুরো অনুষ্ঠানটি নান্দনিক সঞ্চালনা করেন পুলিশ কর্মকর্তা প্রিয়তোষ বড়ুয়া।

 

বাংলাদেশ মেইল/ শাহজাহান চৌধুরী শাহীন,/কক্সবাজার

 

Leave a comment

ফেসবুকে আমরা

সর্বশেষ সংবাদ

উপরে