সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল কে আইনগত সহায়তাসহ সুরক্ষা দিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের নির্দেশ

বিশেষ প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ন্যাশনাল নিউজ ক্লাব,কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সহশিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক, ঢাকা প্রেস ক্লাব সদস্য, জার্মানীর বার্লিন ভিত্তিক দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টার ন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)বরগুনার ইয়ুথ এ্যানগেইজমেন্ট এন্ড সার্পোট (ইয়েস) গ্রুপের প্রাক্তন দলনেতা সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল কে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ ( সুরক্ষা প্রদান ) আইন ২০১১ এর ধারা ৫ এর উপধারা (২),(৩) মোতাবেক প্রযোজ্য আইনগত সহায়তাসহ সুরক্ষা প্রদানের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরগুনাকে নির্দেশ দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। একই সাথে নির্দেশনার অনুলিপি সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল সহ অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক,বরিশাল। পরিচালক ( অনুঃ ও তদন্ত-৮)দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়,ঢাকা। পরিচালক ( পর্যবেক্ষণ ও বিশারদ )দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়,ঢাকা। পরিচালক,দুর্নীতি দমন কমিশন,বিভাগীয় কার্যালয়,বরিশাল। চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব ( চেয়ারম্যানের সানুগ্রহ অবগতির জন্য)দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়,ঢাকা। কমিশনার (অনুসন্ধান/তদন্ত) একান্ত সচিব ( কমিশন (অনুসন্ধান/তদন্ত)-এর সানুগ্রহ অবগতির জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়,ঢাকা। উপপরিচালক,
দুর্নীতি দমন কমিশন,সমন্বিত জেলা কার্যালয়,পটুয়াখালী। জনাব আরিফ হোসেন,উপসহকারী পরিচালক,দুর্নীতি দমন কমিশন,সমন্বিত জেলা কার্যালয়,পটুয়াখালীর নিকট প্রেরন করা হয়েছে। গত ২৯/০৮/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ ০৪.০১.০৪০০.৬৫৩.০২.০২৩.১৮.৩৩৫৬৮/১(৯) নং স্মারকে দুর্নীতি দমন কমিশনের মহাপরিচালক তদন্ত-১, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত পত্রে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল কে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ ( সুরক্ষা প্রদান ) আইন ২০১১ এর ধারা ৫ এর উপধারা (২),(৩) মোতাবেক প্রযোজ্য আইনগত সহায়তাসহ সুরক্ষা প্রদানের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরগুনাকে নির্দেশ দেয়া হয়।কিন্তু দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পরেও এ বিষয়ে কোনো অগ্রগতি পরিলক্ষিত হচ্ছেনা। দুর্নীতি দমন কমিশন থেকে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল কে আইনগত সহায়তাসহ সুরক্ষা প্রদানের নির্দেশনা দিলেও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে নিজ উদ্যোগে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। জানা গেছে,সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল বরগুনা সদর উপজেলার ২০১৩ সালে জাতীয়করণকৃত রেজিঃ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তির অর্থ বিগত ২৬/০৯/২০১০ খ্রিঃ তারিখে প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে প্রাগম/পরি-২/উপবৃত্তি-২য়/স্টিয়ারিং কমিটি/৭০/০৯/২৩৯ নং স্মারকে জারিকৃত উপবৃত্তির অর্থ বাস্তবায়ন সংক্রান্ত পরিপত্রের নির্দেশনা । ২০/০৪/২০১৬ খ্রিঃ তারিখে প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয় উন্নয়ন -১ অধিশাখা বাংলাদেশ সচিবালয় ঢাকা থেকে ৩৮.০০.০০০০.০০৯.১৪. ০১৫.১৬-২১৬ নং স্মারকে জারিকৃত পরিপত্রের নির্দেশনা অনুসারে যথাযথ ভাবে বাস্তবায়ন ও প্রতিপালন করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ের উপর অনুসন্ধান করেন। অনুসন্ধানে ২০১৩ সালে জাতীয়করণকৃত বরগুনা সদর উপজেলার ১১টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপবৃত্তি এবং শ্লীপ গ্র্যান্টের অর্থ বাস্তবায়ন সংক্রান্ত তথ্য চেয়ে তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর আওতায় বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে বরগুনা সদর উপজেলা শিক্ষা অফিস,জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস,বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়,বরিশাল,প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়,অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ,অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়,অগ্রণী ব্যাংক,বরগুনা শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (আরটিআই)দের নিকট তথ্য প্রাপ্তির আবেদন করেছিলেন। কোনো কোনো সময় তথ্য না পেয়ে আপীল আবেদন ও ক্ষেত্রমতো তথ্য কমিশনে অভিযোগ দায়ের করে যে সকল তথ্য পেয়ে ছিলেন, তা বিশ্লেষণ করে বরগুনা সদর উপজেলার ১৪ নং পূর্ব গুদিঘাটা নুরিয়া, ৭১ নং মধ্য সাহেবের হাওলা, ৩৮ নং আংগার পাড়া, পশ্চিম আংগার পাড়া, পূর্ব ঘটবাড়িয়া,৬১ নং ডৌয়াতলা,কেসাত ঘর পল্লী মঙ্গল,মধ্য কুমড়াখালী এস কে রায়,বরগুনা রেড ক্রিসেন্ট বিদ্যানিকেতন,সাহেবের হাওলা রফেজিয়া দাখিল মাদ্রাসা, বরগুনা নুরানী মাদ্রাসা, ঘটবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বেতাগী উপজেলার চান্দখালী ইসহাক মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চান্দখালী মোশারফ হোসেন কলেজ, বরগুনা সরকারি কলেজ,পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার ১১৭ নং দক্ষিণ গাজিপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে যে সকল তথ্য পাওয়া তা বিশ্লেষণ করে বরগুনা সদর উপজেলার ১৪ নং পূর্ব গুদিঘাটা নুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ব্যাপক ভূয়া শিক্ষার্থীদের নামে উপবৃত্তির অর্থ আত্মসাতের প্রমান পাওয়া যায়।এরপর সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) আইন ২০১১ এর আওতাভুক্ত দুর্নীতি দমন কমিশনের তফসিল ভূক্ত সংগঠিত অপরাধ বিবেচনায় সংবাদ প্রকাশের পাশাপাশি গত ০৪/০১/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।দুদকের প্রধান কার্যালয়ের অভিযোগ যাচাই-বাছাই কমিটির আহবায়ক ও দুদকের পরিচালক(বিশেষ অনুসন্ধান ও তদন্ত-১) এ কে এম জায়েদ হোসেন খান স্বাক্ষরিত গত ২৬/০১/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ দুদক/যাচাই:বাছাই/৩৩-২০১৭/৩২৬৯ নং স্মারকের পত্র দ্বারা অভিযোগের প্রাপ্তি স্বীকার পূর্বক অভিযোগকারীকে অবহিত করা হয়েছিল। এরপর গত ২৬/০৯/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ দুদক/যাচাই:বাছাই/৩৫২-২০১৭/২৯১০৭ নং স্মারকের পত্র দ্বারা জানানো হয় যে, অভিযোগটি দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়,পটুয়াখালী হতে অনুসন্ধানের পরবর্তী কার্যক্রম গৃহীত হবে। অভিযোগটি অনুসন্ধানের জন্য দুদক,প্রকা,ঢাকার স্মারক নং দুদক/৬১/২০১৭/(অনু:ও তদন্ত-২)/বরগুনা/৩২৬১১৫ তাং ৩০/১০/২০১৫ খ্রিঃ, দুদক বিকা,বরিশালের স্মারক নং ০৪.০১.০৪০০.৭৪১. ০১.০১৯.১৭.১২৩ তাং ১১/০২/২০১৮ খ্রিঃ আলোকে দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়,পটুয়াখালীর উপসহকারী পরিচালক আরিফ হোসেন ই/আর নং ২২/২০১৭ মূলে অভিযোগটির অনুসন্ধান শুরু করে সংশ্লিষ্ট সকলকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। অনুসন্ধান শেষে আরিফ হোসেন গত ২৬/০৬/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ ৮৫১ নং স্মারকে দুদকের বরিশালের পরিচালকের মাধ্যমে প্রতিবেদন দাখিল করেন।দুদক বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয় বরিশালের স্মারক নং ৪৯৯ তাং ০৯/০৭/২০১৮ খ্রিঃ এর মাধ্যমে অনুসন্ধান প্রতিবেদন দুদকের প্রধান কার্যালয়ে প্রেরন করা হয়েছিল। এরপর দুদক প্রধান কার্যালয় থেকে গত ০৬/০৯/২০১৮ খ্রিঃ ০৪.০১.০৪০০.৬৫৩.০৬১.১৭.২৭২১৮/১০ নং স্মারকে নির্দেশনার আলোকে আদিষ্ট হয়ে উপসহকারী পরিচালক আরিফ হোসেন বাদী হয়ে বরগুনা সদর উপজেলার ১৪ নং পূর্ব গুদিঘাটা নুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন এবং ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমির হোসেনকে আসামী করে বরগুনা থানার মামলা নং ২১,জিআ নং ৫৫৯, তারিখ ১২/০৯/২০১৮, ধারা: ৪০৯/৪২০/১০৯ পেনাল কোড এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় ১৪ নং পূর্ব গুদিঘাটা নুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনকে গত ১২/১১/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ বরগুনার বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট ভারপ্রাপ্ত জনাব আব্বাস উদ্দিন ০৪ নং আদেশে জেলহাজতে প্রেরনের আদেশ দেন। জেলহাজতে যাওয়ার কারনে উপজেলা শিক্ষা অফিসের গত ২২/১১/২০১৮ খ্রিঃ তারিখের ৬৭১ নং স্মারকের বরাতে বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে গত ০৩/১২/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ ১৬৪৮/৫ নং স্মারকের এক অফিস আদশের মাধ্যমে
ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। দুদকের দায়েরকৃত মামলায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমির হোসেনের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/১০৯ এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২)ধারায় চার্জশীট দাখিলের জন্য গত ২৬/০৮/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ দুর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক মঞ্জুরী জ্ঞাপন করা হয়। সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল এর দুদকে দায়েরকৃত অভিযোগের অনুলিপি পেয়ে বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে গত ০৮/০১/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ বরগুনা জেলার বামনা উপজেলা শিক্ষা অফিসার খোকন চন্দ্র মালাকর কে আহবায়ক, পাথরঘাটার সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম হায়দার,বেতাগীর সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার কামরুজ্জামান রেজাকে সদস্য করে ৩ সদস্য তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এ তদন্ত কমিটি অভিযোগের সত্যতা পাননি মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করলে অভিযোগকারী অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৬/০৭/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে ১০২২/১০ নং স্মারকে বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলা শিক্ষা অফিসার (চ.দা.) মজিবুর রহমান কে আহবায়ক, বেতাগীর সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার কামরুজ্জামান রেজা,তালতলী সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার রিপন মন্ডলকে সদস্য করে ৩ সদস্য তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এ তদন্ত কমিটি অভিযোগটি মিথ্যা,ভিত্তিহীন মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করলে অভিযোগকারী অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৪/০৯/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়,প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশাল থেকে উপ-পরি/প্রাশি-বরি/প্রশা-১/তদন্ত(কর্মকর্তা-কর্মচারী)/৮৩/২০১২-৯২১ নং স্মারকে জাহাঙ্গীর আলম, পিটিআই সুপারিন্টেনডেন্ট বরগুনাকে অধিকতর তদন্তের দায়িত্ব দিয়ে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এ তদন্ত কমিটি দীর্ঘ তদন্ত শেষে সততা ও দক্ষতার সাথে তথ্যপত্র সম্বলিত একটি পূর্নাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর অভিযোগকারী মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তি মূলক ব্যবস্থা গ্রহনের অভিযোগ দায়ের করলে ৩টি তদন্ত প্রতিবেদনের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গত ১১/০২/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়,প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশাল থেকে উপ-পরি/প্রাশি-বরি/৭৪ নং স্মারকে মোল্যা ফরিদ আহমেদ,পিটিআই সুপারিন্টেনডেন্ট, পিরোজপুর পিটিআই, পিরোজপুর -আহবায়ক, মোঃ রুহুল আমিন, উপজেলা শিক্ষা অফিসা,মঠবাড়িয়া পিরোজপুর, মোঃ লুৎফর রহমান,উপজেলা শিক্ষা অফিসার,পটুয়াখালী সদরকে সদস্য করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এ তদন্ত কমিটি রাঘববোয়ালদের ছেড়ে দিয়ে চুনোঁপুটির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করেন।ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানীত হওয়ায় তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে বিভাগীয় মামলা রুজু করে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য উপপরিচালকের কার্যালয়,প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশাল থেকে গত ২৫/০৬/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ উপ-পরি/প্রাশি-বরি/ ৫৭৩ নং স্মারকে বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এম এম মিজানুর রহমানকে নির্দেশ দিলে গত ১৬/০৭/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ জেপ্রাশিঅ/বরগুনা/৮৭৩ নং স্মারকে বিভাগীয় মামলা রুজু করে ৮৭৪ নং কৌফিয়ত তলব করা হয়। বিভাগীয় মামলা বিচারাধীন রয়েছে। মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ করে গত ০৩/০৯/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়,প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশাল থেকে উপ-পরি/প্রাশি-বরি/৩৭৭ নং স্মারকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরবরে প্রতিবেদন প্রেরন করা হয়েছিল। এ প্রতিবেদনের আলোকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে গত ০৭/১১/২০১৮খ্রিঃ তারিখ৩৮.১০৬.০২৭.০৫.০৪.০৬৩. ২০১৩-৬৯০ নং স্মারকে তদন্ত ও শৃঙ্খলা শাখার সহকারী পরিচালক সৈয়দা মাহফুজা বেগম মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ফাইল বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়,প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশালে প্রেরন করেন। এ বিষয়ে অদ্যাবধি কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি।
অবস্থা বেগতিক বুঝে দুর্নীতিগ্রস্থরা সরকারী অর্থ আত্মসাতের অভিযোগের দায় থেকে বাচঁতে এবং দলিয়দের বাচাঁতে পরস্পর যোগসাজশে গভীর ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের মাধ্যমে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লালকে আনীত সরকারী অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ বিষয়ে আপোষ নিষ্পত্তির প্রস্তাব দিয়ে ব্যর্থ হয়ে প্রথমে ১৪ নং পূর্ব গুদিঘাটা নুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভারপ্রাপ্ত মোঃ আবুল হোসেন বাদী হয়ে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লালসহ ৩ জনকে আসামী করে বরগুনা থানার মামলা নং ৪২, জিআর নং ৬৭২/২০১৬, দায়ের করেন।যা বিচারে বিজ্ঞ আদালতের আদেশ নং ২০ তারিখ ৩০/১০/২০১৮ মূলে খালাস দেয়া হয়। এরপর একই আকার ও প্রকারের বর্ননায় বরগুনা সদর উপজেলার ২ নং গৌরীচন্না ইউনিয়নের উত্তর লাকুরতলা গ্রামের আব্দুর রহিম জোমাদ্দারের ছেলে দক্ষিন মনসাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জাকির হোসেন(৫৩), ১নং বদরখালী ইউনিয়নের কুমড়াখালী গ্রামের মৃত: হোসাইন আলী ফরাজীর ছেলে কেসাতঘর পল্লীমঙ্গল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ ফরাজী (৫৭),৪ নং কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের আংগারপাড়া গ্রামের মৃত: আবুল হাসেম মিয়ার ছেলে পুলিশ লাইন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নজরুল ইসলাম(৪৮) , ২ নং গৌরীচন্না ইউনিয়নের দক্ষিণ মনসাতলী গ্রামের বীরেন্দ্রনাথ রায়ের ছেলে চাইলতাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ( বর্তমানে পূর্ব ধুপতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক)বিকাশ চন্দ্র রায়(৪১)বরগুনা পৌরসভার অধিন, পশ্চিম সদর বরগুনার মৃত: মজিবুর রহমানের ছেলে পাতাকাটা দরবার শরিফ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আসলাম হোসেন(৪৬), বরগুনা পৌরসভার অধিন সিরাজ উদ্দিন সড়কের মৃত: নুরুল ইসলাম মাস্টারের স্ত্রী ছোট লবনগোলা আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ রাশিদা আক্তারকে স্বাক্ষী সাজিয়ে কোরক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম লিটন(৪৫)কে বাদী বানিয়ে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল ও তার সহকর্মী সাংবাদিক মোঃ নিয়ামুল হাসন
নিয়াজকে আসামী করে বরগুনা থানার মামলা নং ১১ তাং ০৯/০৫/২০১৮, জিআর ২৮৬/১৮ দায়ের করান। এরপর বরগুনা পৌরসভার ডিকেপি এলাকার মৃত: সোনামদ্দিনের ছেলে দক্ষিণ আমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইদ্রিসুর রহমান, ৬ নং ইউনিয়নের চরক গাছিয়া গ্রামের মৃত: সুধির চন্দ্র রায়ের ছেলে স্বনির্ভর উত্তর চরক গাছিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র রায়, বরগুনা পৌরসভার কলেজ রোড এলাকার মৃত: আব্দুল কাদের মিয়ার ছেলে ফুলতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ জুলফিকার আলী,৭ নং ইউনিয়নের ফুল ঢলুয়া গ্রামের মৃত: আজাহার উদ্দিনের ছেলে দক্ষিণ ফুল ঢলুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জাহাঙ্গীর কবির, ৮ নং ইউনিয়নের পাঠাকাটা গ্রামের মৃত: আঃ রশিদ মিয়ার ছেলে মধ্য পাতাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ গোলাম কবির স্বাক্ষী সাজিয়ে
সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লাল ও তার সহকর্মী সাংবাদিক মোঃ নিয়ামুল হাসন
নিয়াজকে আসামী করে গত ২৪/০৭/২০১৮ তারিখ বরগুনার বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে.চর চরক গাছিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কথিত বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক কল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমগীর হোসেন(৪৫)কে বাদী বানিয়ে গত ২১/০৭/২০২৮ খ্রী তারিখের ঘটনা দেখিয়ে সরকারী কর্মচারী (আচর) বিধিমালার ১৯৭৯
The Government Servant (conduct) rules,1979 এর বিধি-২৮ লংঙ্ঘন করে সরকারের পূর্বানুমোদন ব্যতিরেকে সিআর -৫৩০/১৮ নং মামলা দায়ের করান।অপর দিকে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ সুরক্ষা প্রদান আইন ২০১১ এবং বিধিমালা ২০১৭ অনুযায়ী এ প্রতিবেদকের দায়েরকৃত অভিযোগ থেকে বাঁচতে প্রতিবেদকের বিরুদ্ধে এককের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির চেষ্টা করা হয়েছে। অথচ জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) আইন ২০১১ এর ধারা ৫ । (১) এ বলা হয়েছে, কোন তথ্য প্রকাশকারী ধারা ৪ এর উপ-ধারা (১) এর অধীন জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোন সঠিক তথ্য প্রকাশ করিলে, উক্ত ব্যক্তির সম্মতি ব্যতীত, তাহার পরিচিতি প্রকাশ করা যাইবে না। (২) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট সঠিক তথ্য প্রকাশের কারণে তথ্য প্রকাশকারীর বিরুদ্ধে কোন ফৌজদারী বা দেওয়ানী মামলা বা, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে, কোন বিভাগীয় মামলা দায়ের করা যাইবে না।(৩) তথ্য প্রকাশকারী কোন চাকুরীজীবী হইলে শুধু জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশের কারণে তাহাকে পদাবনতি, হয়রানিমূলক বদলী বা বাধ্যতামূলক অবসর প্রদান করা বা এমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাইবে না যাহা তাহার জন্য মানসিক, আর্থিক বা সামাজিক সুনামের জন্য ক্ষতিকর হয় বা তাহার বিরুদ্ধে অন্য কোন প্রকার বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও বৈষম্যমূলক আচরণ করা যাইবে না।
(৪) উপ-ধারা (৬) এর বিধান সাপেক্ষে, ধারা ৪ এর অধীন প্রকাশিত তথ্য কোন দেওয়ানী বা ফৌজদারী মামলায় সাক্ষ্য হিসাবে গ্রহণ এবং তথ্য প্রকাশকারীকে কোন দেওয়ানী বা ফৌজদারী মামলায় সাক্ষী করা যাইবে না এবং মামলার কার্যক্রমে এমন কোন কিছু প্রকাশ করা যাইবে না যাহাতে উক্ত ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশিত হয় বা হইতে পারে।(৫) কোন দেওয়ানী বা ফৌজদারী মামলার সাক্ষ্য-প্রমাণের অন্তর্ভুক্ত কোন বহি, দলিল বা কাগজপত্রে যদি এমন কিছু থাকে, যাহাতে তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয় অন্তর্ভুক্ত থাকে, তাহা হইলে আদালত কোন ব্যক্তিকে, উক্ত বহি, দলিল বা কাগজপত্রের যে অংশে উক্তরুপ পরিচয় লিপিবদ্ধ থাকে সেই অংশ পরিদর্শনের অনুমতি প্রদান করিবে না।তদন্তের ক্ষেত্রে সহায়তার বিষয়ে বলা হয়েছে,
৭ । (১) কোন তথ্য প্রকাশকারী জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ করিলে, তিনি, সংশ্লিষ্ট তথ্যের সত্যতা তদন্তের ক্ষেত্রে, পুলিশ বা অন্য যে কোন তদন্তকারী কর্তৃপক্ষকে সহায়তা করিবেনঃতবে শর্ত থাকে যে, কোন তথ্য প্রকাশকারীকে এইরুপ কোন তদন্তে সহায়তা করিতে বাধ্য করা যাইবে না, যাহার ফলে তাহার জীবন ও শারীরিক নিরাপত্তা বিঘ্নিত হইতে পারে বা তিনি ভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হইতে পারেন।(২) এই আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ, যথাযথ কর্তৃপক্ষ বা, ক্ষেত্রমত, তদন্তকারী কর্মকর্তা, তদন্তের ক্ষেত্রে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা বা অন্য যে কোন সরকারি কর্তৃপক্ষ বা সংবিধিবদ্ধ সংস্থার নিকট সহায়তার জন্য অনুরোধ করিতে পারিবেন এবং তদনুসারে উক্ত কর্তৃপক্ষ বা সংস্থা সহায়তা প্রদান করিবে।
জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ সুরক্ষা প্রদান আইন ২০১১ এর এর বিধিমালা ২০১৭ এর ধারা-৩ এর উপধারা- ২ এ বলা হয়েছে, কোন ব্যক্তি ধারা-৪ এর অধিন জনস্বার্থ- সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ করিলে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয় গোপন রাখাসহ তাহাকে প্রয়োজনীয় সকল সুরক্ষা প্রদান করিবে। ধারা-৩ এর উপধারা- ৩ এ বলা হয়েছে, জনস্বার্থ- সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশের কারনে তথ্য প্রকাশকারী যাহাতে হয়রানীর স্বীকার না হন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ তাহা নিশ্চিত করিবে।ধারা-৫ এর উপধারা-১ এ বলা হয়েছে,জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশের ক্ষেত্রে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ,ডেজিগনেটেড অফিসারের তত্ত্বাবধানে, তৎসংশ্লিষ্ট কার্যালয়ের জন্য ফরম-২ মোতাবেক একটি রেজিস্টার গোপনীয়ভাবে সংরক্ষণ করিবে, যাহাতে ডেজিগনেটেড অফিসার তথ্য প্রকাশকারীর ব্যক্তিগত তথ্যসহ আনুষাঙ্গিক তথ্য লিপিবদ্ধ রাখিবেন। ধারা-৫ এর উপধারা-২ এর উপবিধি-১ এর অধিন সংরক্ষিত রেজিস্টার বা উহাতে লিপিবদ্ধ তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয় সংশ্লিষ্ট তথ্য যাহাতে প্রকাশিত না হয় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তদ্বিষয়ে সর্ব্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করিবেন এবং কখনও উক্ত তথ্যের গোপনীয়তা ক্ষুন্ন হইলে তজ্জন্য তিনি ব্যক্তিগত ভাবে দায়ি হইবেন। ধারা-৫ এর উপধারা- ৪ বলা হয়েছে, ডেজিগনেটেড অফিসার ফরম-৩ মোতাবেক একটি অভিযোগ রেজিস্টার রক্ষণাবেক্ষন করিবেন,যাহাতে তিনি তথ্য প্রকাশকারী ও অভিযুক্ত ব্যক্তির তথ্য লিপিবদ্ধকরত উহা গোপনীয়ভাবে সংরক্ষণ করিবেন। ধারা-৬ এর উপধারা-৪ এ বলা হয়েছে, জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশের ক্ষেত্রে কোনো বিষয় তদন্তকালে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ বা,ক্ষেত্রমত,কোনো তদন্তকারী সংস্থা তথ্য প্রকাশকারীর গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা রক্ষা করিয়া, প্রয়োজনে, তাহার নিকট হইতে প্রাসঙ্গিক তথ্য ও উপাত্ত সংগ্রহ করিতে পারিবে। ধারা-১০ এর উপধারা-১ এ বলা হয়েছে,জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য ও তথ্য প্রকাশকারীর গোপনীয়তা সংরক্ষণঃজনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট প্রকাশিত কোনো তথ্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে উহার যথাযথ গোপনীয়তা রক্ষা করিতে হইবে,যেন তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয় কোনোভাবে প্রকাশিত না হয়। উপধারা-২ এ বলা হয়েছে, তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয়কে গোপনীয় তথ্য গন্যে সরকারী গোপনীয় আইনের আলোকে যথাযথ ভাবে সংরক্ষণ করিতে হইবে। ধারা-১১ তে গ্রহীত ব্যবস্হার ফলাফল অবহিতকরনের বিষয়ে বলা হয়েছে, ৮। কোনো তথ্য প্রকাশকারী কর্তৃক উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট যথাযথভাবে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোনো তথ্য প্রকাশ করা হইলে,তথ্য প্রকাশকারী অনুরোধ করিলে,সংশ্লিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে কি ব্যবস্হা গ্রহন করা হইয়াছে তাহা তাহাকে, তাহার গোপনীয়তা অক্ষুণ্ণ রাখিয়া, অবহিত করিতে হইবে।এই আইনের ধারা ৫ এর বিধান লংঘনের দণ্ডের বিষয়ে বলা হয়েছে, ৯। (১) কোন ব্যক্তি ধারা ৫ এর বিধান লংঘন করিলে তিনি এই আইনের অধীন অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবে এবং উক্ত অপরাধের জন্য তিনি অন্যূন ২ (দুই) বৎসর বা অনধিক ৫ (পাঁচ) বৎসর কারাদণ্ডে বা অর্থদণ্ডে বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।(২) উপ-ধারা (১) এ উল্লিখিত অপরাধী কোন সরকারি কর্মকর্তা হইলে, তাহার বিরুদ্ধে উক্ত উপ-ধারায় উল্লিখিত দণ্ড ছাড়াও বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করিতে হইবে।আইনে এইরুপ নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও এ বিষয়ে কোনো গুরুত্ব প্রদান করা হয়নি।অভিযোগকারীর অভিযোগ সমূহ জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ হিসেবে গন্য না করে বিভাগীয় তদন্তকারী কর্মকর্তাগন (১) তথ্য প্রকাশকারীর পরিচয় দাপ্তরিক গোপনীয় আইন ১৯২৩ এর আলোকে যথাযথ ভাবে সংরক্ষন না করে তথ্য প্রকাশকারী পরিচিত ফাঁস করেছেন। (২) তথ্য প্রকাশকারী পরিচিত ফাঁস করার কারনে অভিযুক্তরা এবং তাদের দলিয় লোকদের দ্বারা মিথ্যা মামলায় হয়রানির স্বীকার হতে হয়েছে। তথ্য প্রকাশকারীর বিরুদ্ধে ফৌজদারী কিংবা দেওয়ানী মামলা এবং বিভাগীয় মামলা দায়ের করা যাবেনা। তথাপিও তথ্য প্রকাশকারীর প্রাতিষ্ঠানিক পরিচিতি গোপন করে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তথ্য প্রকাশকারী যাতে হয়রানির স্বীকার না হন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ তা নিশ্চিত করার বিধান থাকলেও কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করেনি।সহকারী শিক্ষক, ক্লাস্টারের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার, ব্যাংক কর্মকর্তা,উপবৃত্তি মনিটরিং অফিসারদের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির পরিপত্র ও শ্লীপ গাইড লাইন অনুযায়ী অভিযোগ প্রমানীত হলেও দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পরেও কেন কর্মকর্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে না।তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ প্রয়োগ করে জনসচেতনতা সৃষ্টি,সচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করনে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালনের জন্য বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি সরূপ ১ জানুয়ারি ২০১৮ খ্রিঃ তারিখ বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হলেও তার প্রতি কোনো প্রকার গুরুত্বারোপ না করে সংশ্লিষ্টরা নিজেদের দুর্নীতি ঢাকতে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) আইন ২০১১ এর বিধিমালা ২০১৭ লংঙ্ঘন করে একের পর এক মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানী করছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বিভাগীয় উপপরিচালক, প্রাথমিক শিক্ষা, বরিশাল,জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, বরগুনা,উপজেলা শিক্ষা অফিস,বরগুনা সদর থেকে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) আইন ২০১১ এর বিধিমালা ২০১৭ অনুযায়ী জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশের কারনে মিথ্যা মামলা,হয়রানীর বিষয়ে কোনো প্রকার সুরক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি।
দুর্নীতি দমন কমিশনের নির্দেশনা পত্রের আলোকে সাংবাদিক আবুল হাসান বেল্লালকে আইনগত সহায়তা সহ সুরক্ষা প্রদানের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়,বরগুনা থেকে কি কি পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে সে বিষয়ে জানতে চাইলে বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেগম মাসুমা আক্তার বৃহস্পতিবার ২৮/১১/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ বিকেলে মুঠো ফোনে বলেন, আমি ১ সপ্তাহ আগে বরগুনায় জয়েন্ট করেছি এ বিষয়ে আমার জানা নেই। ফাইল দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্বে ছিলেন মোঃ আনিচুর রহমান। তিনি বর্তমানে ভোলার বোরহান উদ্দিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করেছেন বলে জানা গেছে।

Comments

comments

সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

© 2011 Allrights reserved to Daily Detectivenews