কলাপায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর যৌতুকের মামলা

এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া প্রতিনিধি: কলাপাড়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে ২ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবীর মামলা করেছেন স্ত্রী হাজেরা বেগম। যৌতুকের দাবী পূরনে অসমর্থ হওয়ায় স্বামী ও শ্বশুর শাশুরী কর্তৃক শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে কলাপাড়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলা নং ৬৮৪/১৯ । মামলার এজার সূত্রে জানা যায়, মুসলিম শরিয়ত আইন মেনে চলতি বছর এপ্রিল মাসে কলাপাড়া উপজেলার ৭নং লতাচাপলী ইউনিয়নের খাজুরা গ্রামের জালাল খানের মেয়ে হাজেরা বেগমের সাথে পার্শ্ববর্তি ৬নং মহিপুর ইউনিয়নের নিজামপুর গ্রামের সুলতান মুন্সীর ছেলে মো: বেল্লাল এর সাথে বিবাহ হয়। বিবাহের পর কিছু দিন যেতে না যেতেই স্বামী বেল্লাল তার পিতা মাতার প্রত্যক্ষ মদদে স্ত্রী হাজেরা বেগমকে তার বাবার বাড়ি থেকে দুই লক্ষ টাকা যৌতুক আনতে বলে। যা দিতে অসমর্থ হওয়ায় তাকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করা হয় বলে স্ত্রী হাজেরা বেগম মামলার এজারে উল্লেখ্য করেন। এদিকে হাজেরার শ্বশুর সুলতান মুন্সী জানান, তারা তাদের পুত্র বধুর কাছে কোন যৌতুক দাবী করেননি এবং যৌতুকের দাবীতে কোন প্রকার নির্যাতনের ঘটনাও ঘটেনি। তার বেয়াই জালাল খান একজন পেশাদার মামলাবাজ। নিজ মেয়েকে দিয়ে মিথ্যা যৌতুকের মামলায় ফাঁসিয়ে নীরিহ মানুষের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের জরিমানা আদায় করা তার নেশা এবং পেশা। সুলতান মুন্সী দাবী করেন, নিজ মেয়েকে কুমারী মেয়ে বলে পরিচয় দিয়ে গত এপ্রিল মাসে তার ছেলের সাথে বিবাহ দেন হাজেরার পিতা। বিয়ের দুই মাস যেতে না যেতে তাঁরা জানতে পারেন হাজেরার এর আগে আরও দুই বার বিয়ে হয়ে ছিল। সেই স্বামী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধেও যৌতুক দাবীর মামলা করেছিল, হাজেরা ও তাঁর পিতা জালাল খান। মামলা নং ৪১৮/২০১৮ ও ৩৫৮/২০১৭ মোকাম পটুয়াখালী বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল। মাত্র ৩ বছরের মধ্যে একই মেয়েকে তিন বার বিয়ে দিয়ে তিন বারই যৌতুক দাবীতে মামলার ঘটনা এলাকায় হাস্যরসের খোরাকে পরিনত হয়েছে।

ভর মৌসুম পার হলেও কলাপাড়ার কৃষকরা এখনও চাষাবাদ করতে পারেনি

এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া প্রতিনিধি: আমন ফসল চাষাবাদের ভর মৌসুম পার হল্ওে কলাপাড়ার সেই কৃষকরা এখনও তাদের জমি চাষাবাদ করতে পারেনি। সরকারি হালটে বাঁধ দিয়ে পানি চলাচলের পথ বন্ধ করে রাখায় সৃষ্ট জলাবদ্ধতার কারনে তারা জমি চাষাবাদ করতে পারছেনা। এদিকে সমস্যা সমাধানে প্রশাসনের সহযোগিতার আশায় বিগত প্রায় তিন মাস ধরে বিভিন্ন ব্যক্তি ও কর্মকর্তার দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন ভ‚ক্তভোগী কৃষকরা। জলাবদ্ধতা নিরসনে সহযোগিতার হাত বাড়াতে হতভাগ্য কৃষকদের পাশে দাঁড়ায়নি কেউ ।
কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার সদর ইউনিয়নের নিজামপুর গ্রাম। আন্ধার মানিক নদীর কোল ঘেষেঁ অবস্থিত এই গ্রামের ৪৭/১ নং পোল্ডারের ভেরী বাঁধ ভেঙ্গে যায় ২০০৭ সালের প্রলয়ংকারী ঘূর্নিঝড় সিডরের আঘাতে। ভাঙ্গা অংশ দিয়ে জোযারের পানি ঢুকে এই গ্রামসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকরা প্রায় এক যুগ ধরে ঠিকমত চাষাবাদ করতে পারেনি। জীবিকা নির্বাহের একমাত্র অবলম্ভন আমন ফসল ঘরে তুলতে না পারায় তাদের জীবন দূর্বিসহ হয়ে ওঠে। এ অবস্থা থেকে কৃষকদের মুক্তি দিতে পটুয়াখালী -৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মুহিব্বুর রহমান মহিব, বর্তমানে প্রায় ২ কোটি ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কলাপাড়া পানি উন্নয়ণ বোর্ডের মাধ্যমে বাঁধ সংস্কারের কাজ করান। ফলে প্রায় এক যুগ পর এলাকার বেশিরভাগ কৃষক জমি চাষাবাদের সুযোগ পেলেও একটি মহলের অযৌক্তিক খামখেয়ালীপনার বলী হয়েছেন বেশ কিছু পরিবার। প্রায় চার দশক ধরে পানি চলাচলের একমাত্র পথ সরকারি হালটে ঐ মহলটি বাঁধ দিয়ে পানি চলাচলের পথ বন্ধকরে দেয়ায সৃষ্ট জলাবদ্ধতার কারনে কৃষকরা তাদের জমি চাষাবাদ করতে পারছেন না। বিষয়টি সরজমিনে তদন্ত করে কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গ্রামের প্রায় দেড়শত মানুষ স্বাক্ষরিত আবেদন করা হয়। আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধি মহিপুর ইউনিয়ন ভ‚মি অফিসের তহশীলদার আ: আজিজ এবং উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো: শপিকুল আলম বাবুল খান পৃথক পৃথক ভাবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কিন্তু আমন ফসল চাষাবাদের ভর মৌসুম পার হল্ওে কৃষকদের সমস্যা সমাধানে এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি । ফলে আগামী আমন ফসল ঘরে তুলতে না পারার দু:স্বপ্নে ক্রমশ: হতাশ হয়ে পড়েছেন ভুক্তভোগী কৃষক পরিবার। এব্যপারে কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মুনিবুর রহমান জানান, বিষয়টি নিয়ে উপজেলা পরিষদের সভায় আলোচনা হয়েছে। কালভার্টের ব্যবস্থা না করে বাঁধটি কেটে দিলে পাকা রাস্তার ক্ষতি হবে তাই আগে কালভার্টের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

Comments

comments

সম্পাদক ও প্রকাশক : ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : ইজ্ঞি: মোঃ হোসেন ভূইয়া।
বার্তা সম্পাদক : জহিরুল ইসলাম লিটন
যুগ্ন-সম্পাদক : শামীম আহম্মেদ

ঢাকা অফিস : জীবন বীমা টাওয়ার,১০ দিলকুশা বানিজ্যিক (১০ তলা) এলাকা,ঢাকা-১০০০
মোবাইলঃ ০১৭১৬-১৮৪৪১১,০১৯৪৪২৩৮৭৩৮

E-mail:dnanewsbd@gmail.com

© 2011 Allrights reserved to Daily Detectivenews